জরুরী খবর! স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে নতুন ঘোষণা করলো কমিশন জানুন বিস্তারিত

57
- Advertisement -


একুশের বিধানসভা নির্বাচনে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের প্রধান তুরুপের তাস ছিল ‘স্বাস্থ্যসাথী কার্ড’। রাজ্যের গরীব মানুষের কাছে এই কার্ডের মূল্য অনেক। এই কার্ডের দ্বারা প্রতিটি পরিবার রাজ্যের তরফ থেকে পেয়ে যায় স্বাস্থ্যবীমা তবে এই কার্ড নিয়ে প্রথম থেকেই দেখা গেছে নানা সমস্যা। সরকারি হাসপাতালে কোন সমস্যা না হলেও বেসরকারি হাসপাতালে এই কার্ড গ্রহণে আপত্তি দেখা গেছে এমনকি কার্ড থাকা সত্ত্বেও ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে রোগীকে, পাশাপাশি ভর্তির আগে জেনে নেওয়া হয়েছে রোগী স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের সুবিধা নেবে কি না। ফলে এই কার্ড থেকেও পরিষেবা পায়নি মানুষ। এই সমস্যা এখনও বিভিন্ন বেসরকারি নার্সিং হোমে দেখা গেছে। ফলে এবার এই সমস্যা দূর করতে মাঠে নামলো স্বাস্থ্য কমিশন।

- Advertisement -

কমিশনের সাফ নির্দেশ, চিকিত্‍সার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকা রোগীকে ফেরত পাঠানো যাবে না। গতকাল অর্থাৎ বুধবার কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, স্বাস্থ্যসাথী কার্ড বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে গ্রহণ করতেই হবে। হাসপাতালে ভর্তির সময় কারও স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না থাকলও তাঁকে ভর্তি নিতে হবে। সেক্ষেত্রে, ভর্তি থাকাকালীনই কার্ড তৈরি করে জমা দিতে রোগী পরিজনকে। কেউ যদি রোগী ভর্তি থাকাকালীনও স্বাস্থ্যসাথী কার্ড বানিয়ে নিয়ে আসেন, তাহলে যেদিন সেটা নিয়ে আসবেন, সেদিন থেকেই মান্যতা দিতে হবে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডকে।

কিছুদিন আগেই সরকারি হাসপাতালে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের ব্যবহারকে বাধ্যতামূলক করে দিয়েছিল স্বাস্থ্য দফতর। কোন পরিবারের কার্ড না থাকলে তা বানিয়ে দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে স্বাস্থ্য দফতরের তরফে।

আরোও পড়ুন :