আগ্নেয়াস্ত্র হাতে নিয়ে ছবি তৃনমূল নেত্রীর! সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল মুহুর্তেই

মৃণালিনী মন্ডল মাইতি
সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে একটি ছবি ভাইরাল হয়েছে,যেখানে দেখা যাচ্ছে হাতে বন্দুক নিয়ে চেয়ারে বসে রয়েছেন এক মহিলা।যিনি আবার কোনও সাধারন ঘরের মহিলা নয়,তিনি হলেন জেলা তৃনমূল কংগ্রেসের সভানেত্রী তথা পঞ্চায়েত সমিতির সভানেত্রী।এই মহিলার নাম মৃণালিনী মন্ডল মাইতি।মালদহের এই নেত্রীর ছবিটি ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।দপ্তরের মধ্যে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে তিনি কেন বসে আছেন তা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক জল্পনা।

- Advertisement -

মৃণালিনী মণ্ডল মাইতি পুরোনো মালদহ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি তথা মালদহ মহিলা তৃণমূলের সভানেত্রী। নিজের দপ্তরেই বন্দুক হাতে তাঁর ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। যদিও এ বিষয়ে মৃণালিনী দেবীর দাবি, ছবিটি পুরনো, প্রায় বছর খানেক আগেকার। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এখন নতুন করে এই ছবি নিয়ে চর্চা শুরু হয়েছে। তবে তাঁর এই বক্তব্য মানতে নারাজ অনেকেই।

এর আগেও একাধিক বার বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন ওই নেত্রী।বিডিও অফিসের কর্মী কে মারধর থেকে শুরু করে একাধিক বিতর্কে উঠে এসেছিল তার নাম।এই ঘটনা নিয়ে বিজেপির জেলা সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মণ্ডলের জানিয়েছেন, ”১১ বছরে গোটা রাজ্যের পাশাপাশি মালদহকেও বারুদের স্তূপে দাঁড় করিয়েছে শাসকদল। ওদের অফিসে এটাই কালচার। পিস্তল আছে, খুঁজলে বোমা পাওয়া যাবে, খুঁজলে একে ৪৭ (AK 47) পাওয়া যেতে পারে। এটা ওদের কালচার হয়ে দাঁড়িয়েছে।”

তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী বলেন, ”সরকারি চেয়ারে বসে এই ধরনের আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে খেলা করাটা ঠিক নয়। আগ্নেয়াস্ত্রটি খেলনা নাকি আসল, সেটা পুলিশ অনুসন্ধান করে বলবে। তবে আমি যেটা ছবিতে দেখলাম, তাতে মনে হচ্ছে, এটা অরিজিনাল আগ্নেয়াস্ত্র। জনগণের কাছে এর ফলে দলের ভাবমূর্তিই নষ্ট হচ্ছে।” 

আরোও পড়ুন :