শহরজুড়ে পূজোর ভিড়ে অ্যাপ-ক্যাব পেতে ভোগান্তি সাধারন মানুষের

18
- Advertisement -

অ্যাপ-ক্যাব
শুরু হয়ে গিয়েছে বাঙালির দূ্র্গোৎসব।বিভিন্ন পূজোমন্ডপ দেখতে ইতিমধ্যেই শহরের রাস্তায় ভিড় জমিয়েছেন দর্শনার্থীরা।আর এর জেরেই অ্যাপ-ক্যাব পেতে গিয়ে কার্যত সাধারন মানুষের নাজেহাল অবস্থা হয়ে যাচ্ছে।এই সংক্রান্ত একাধিক অভিযোগ উঠে এসেছে।সন্ধ্যা হলেই ভাড়াএ পরিমান অনেকটা বেড়ে যাচ্ছে,একইসাথে দূরের গন্তব্য হলে যাত্রা বাতিল করে দেওয়া পর্যন্ত হচ্ছে।বেশির ভাগ ক্ষেত্রে আবার ক্যাব পেতেই বহু সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে।যদিও পথে তাদের গাড়ির সংখ্যা কম রয়েছে এমনটাও জানাচ্ছে না অ্যাপ-ক্যাব সংস্থাগুলি।

- Advertisement -

পঞ্চমীর সন্ধ্যা নামতেই শহরজুড়ে ট্রাফিকের কড়াকড়ি শুরু হয়েছে।যানজট যাতে না হয় সেই কারনে অটোর বিভিন্ন রুট কাটছাঁট করা হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে।উত্তর, মধ্য সহ দক্ষিন কলকাতার বিভিন্ন রুটে অটো চলাচল কমে যাওয়ার ফলে সাধারন মানুষের ভরসা বেড়েছে অ্যাপ-ক্যাব গুলির উপর।

পূজোর দিন গুলিতে অ্যাপ ক্যাবের চাহিদা ক্রমেই বাড়বে। জানা গিয়েছে শহরের তিনপ্রধান অ্যাপ ক্যাব সংস্থাতে রাইডের অ্যাপে সার্জ না থাকার কারনে যাত্রী দের আর্থিক দিক থেকেও কিছুটা সুরাহা মিলেছে।একই সাথে গাড়িতে বাতানুকুল যন্ত্র চালু থাকায় যাত্রী স্বাচ্ছন্দ্য ও রয়েছে।তবে যাত্রী দের অভিযোগ প্র‍য়োজনের তুলনায় অনেক কম অ্যাপ ক্যাব চলায় বাড়ছে ভোগান্তি।

এই সমস্যা প্রসঙ্গে এআইটিইউসির ট্যাক্সি এবং অ্যাপ-ক্যাব চালক সংগঠনের নেতা নওলকিশোর শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, ‘‘আমরা চালকদের সমস্যা সম্পর্কে জানিয়েছি। চাহিদা যেখানে, সকলে মিলে সেখানে ছুটল কিছুক্ষণ পরে তা পড়ে যায়। ফলে এ ভাবে খুব বেশি লাভ হয় না। পুজোর পরে এ নিয়ে বড় কর্মসূচি নেওয়ার ভাবনা রয়েছে।’’ একই সাথে ওয়েস্ট বেঙ্গল অনলাইন ক্যাব অপারেটর্স গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রনীল বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘‘বহু চালকের কাছে এখনও পৌঁছনো যায়নি। চেষ্টা করছি দ্রুত পৌঁছতে।’’তবে পূজোর মধ্যে কি এই সমস্যা মিটবে তা সঠিক ভাবে বলতে পারেননি কেউই।

আরোও পড়ুন :