সমীরের ‘নিকা’র ছবি ট্যুইট করলেন নবাব,কি প্রতিক্রিয়া এনসিবি অফিসারের?

82
- Advertisement -

সমীর ওয়াংখেড়ে
মাদক মামলা কান্ডে শাহরুখ খানের পুত্র আরিয়ানের গ্রেফতারের পর থেকেই এনসিবি- এনসিপি দ্বন্দ্ব চরমে।এই দ্বন্দ্ব মূলত শুরু হয়েছে এনসিবি অফিসার সমীর ওয়াং খেড়ে ও এনসিপি নেতা নবাব মালিকের মধ্যে।এবার মহারাষ্ট্রের উন্নয়নমন্ত্রী তথা এনসিপি মুখপাত্র নবাব এনসিবি অফিসার সমীরের ‘নিকা’ র ছবি সবার সামনে আনলেন।এই ছবি টি ট্যুইটারে প্রকাশ করে তিনি লিখেছেন,‘‌এক জন মিষ্টি দম্পতির ছবি। সমীর দাউদ ওয়াংখেড়ে এবং ডা.‌ শাবানা কুরেশি।’‌

- Advertisement -

অবশ্য হঠাৎ করেই এই ছবি প্রকাশ করে বিতর্ক সৃষ্টি করছেন না নবাব মালিক।সমীর ওয়াংখেড়ের নেতৃত্বে এনসিবির হাতে আরিয়ানের গ্রেফতারির পর থেকেই এনসিপি নেতা নবাব মালিক এই ঘটনার সাথে রাজনৈতিক যোগ নিয়ে সরব হয়ে উঠেছেন।তিনি একের পর এক ঘটনা উল্লেখ করে বার বার এনসিবি অফিসার দের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন।মুম্বাইয়ের প্রমোদতরীতে অভিযান চালানোর সময় এনসিবি–র জোনাল ডিরেক্টর সাক্ষী হিসেবে নিজের পরিচিতদের বেছে নিয়েছিলেন যার মধ্যে বিজেপি নেতাও রয়েছেন।

এবার আরেকধাপ এগিয়ে সমীর ওয়াংখেড়ের চাকরিতে নিয়েগ নিয়ে প্রশ্ন তুললেন নবাব মালিক।তার দাবী মুসলিম হওয়া সত্ত্বেও নিজেকে তফশিলী জাতি দেখিয়েছেন।এই শংসাপত্রর দরুনই আইআরএসের চাকরি পান সমীর।এনসিপির মালিক তার দাবীর স্বপক্ষে সমীরের জন্মের শংসাপত্রের ছবি পোস্ট করেছেন ট্যুইটারে।এই ছবিতে স্পষ্ট ভাবেই দেখা যাচ্ছে তার নাম সমীর দাউদ ওয়াংখেড়ে।এরপরেই তিনি প্রশ্ন তোলেন তাহলে তপশিলি হিসাবে সমীর কিভাবে চাকরি পেলেন?

একইসাথে তার যুক্তির স্বপক্ষে সমীরের নিকার একটি ছবি পোস্ট করেন তিনি।২০০৬ সালে নিকার দিন স্ত্রী শাবানার সাথে তোলা এই ছবি।সমীরের নিকা দিয়েছিলেন এক মৌলবী। তিনি জানান,‘‌২০০৬ সালে তিনি বলেছিলেন তিনি মুসলিম। সেই মতোই আমি বিয়ে পড়িয়েছিলাম। তাঁর বাবার নাম দাউদ। আজ যদি তিনি বলেন, তিনি মুসলিম না, তাহলে মিথ্যে বলছেন।’‌ 

নবাব আরও জানান,সমীরের ধর্ম নিয়ে তার কোনো প্রকার আপত্তি নেই।তিনি শুধুমাত্র বুঝিয়ে দিতে চেয়েছেন এই সমীর ওয়াংখেড়ে কত বড়ো মাপের একজন অসৎ ব্যাক্তি।যিনি চাকরির জন্য নিজের জাতি ধর্ম বদলে ফেলতে বিন্দুমাত্র ভাবেন না।

আরোও পড়ুন :