আবার নেটদুনিয়ায় কটাক্ষের শিকার মীর, কড়া ভাষায় জবাব ও দিলেন তিনি!

মীর
সম্প্রতি দূর্গাপূজো নিয়ে নিজের স্মৃতি শেয়ার করার ফলে জনপ্রিয় রেডিও সঞ্চালক তথা অভিনেতা মীর আফসার আলি কে আবার ও সোশ্যাল মিডিয়ায় কটুক্তির মুখে পড়তে হল।তবে অন্যান্য বারের মতো মজা করে উড়িয়ে না দিয়ে এবার নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করলেন অভিনেতা।সোশ্যাল মিডিয়ায় এক দীর্ঘ পোস্ট করে নিজের ক্ষোভ জানান তিনি।

- Advertisement -

ঘটনা টি ঘটেছে একটি দূ্র্গাপূজোর বিজ্ঞাপনী প্রচার কে ঘিরে।এই প্রচারে দূ্র্গাপূজোতে নিজের ছেলেবেলার কিছু স্মৃতি তুলে ধরেছিলেন মীর।আর তা নিয়েই বেধেছে গন্ডগোল।যদিও এরকম ঘটনা মীরের সাথে মাঝেমধ্যেই ঘটে থাকে।বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করলে মুসলমান হওয়ায় তাকে কটাক্ষ হতে হয়।যদিও এই সমস্ত ঘটনা কে একেবারেই গুরুত্ব দিতে আগে দেখা যায়নি তাকে।কিন্তু এবারের ঘটনায় আর চুপ থাকতে পারলেন না তিনি।হতাশা প্রকাশ করে মীর ফেসবুকে জানিয়েছেন,’অশেষ ধন্যবাদ তাঁদের যাঁরা বার বার মনে করিয়ে দেন আমি শুধুই একজন মুসলমান, আর অন্য কোনও পরিচয় নেই মীরের। আপনারা ভালো থাকবেন। বড্ড হতাশ হলাম।’

ফেসবুকে তিনি আরও লিখেছেন,’নিজেকে আমি বারবার খুঁজে পেয়েছি, ইনোভেট করেছি নতুন আমিকে। সেরকম একটা গল্প, একটা অনুভূতি শেয়ার করছি আপনাদের সঙ্গে যদিও ইতিমধ্যে ধর্মের নামে কিছু বিজ্ঞ মানুষ জ্ঞান ফলাতে চলে এসেছেন। এত যুগ বাদেও মানুষকে বোঝানো গেল না যে ধর্ম যার যার নিজের ব্যাপার কিন্তু ‘উৎসব’ সবার। যাক গে। বড় বড় মনীষীরা যেটা করে যেতে পারেননি, সেটা আমার মতো একজন অতি সামান্য ক্ষুদ্র মানুষ কি করে পারবে? এত দিন বাদেও এটা যিনি বুঝে উঠতে পারলেন না, তিনি ভবিষ্যতেও পারবেন না। তাঁর জন্য করুণা। আর বুক ভরা ভালবাসা। এই ভিডিওটি হতে পারে একটি বিজ্ঞাপনী প্রচার কিন্তু এর মাধ্যমে বলা কথাগুলো আমার ছেলেবেলার সঙ্গে যুক্ত। বহু কষ্টে বেড়ে ওঠার সময়কার এক অধ্যায়। যেদিন মির্চির অফিসে বসে এটা নিয়ে পরিকল্পনা হয়েছিল, ভেবেছিলাম আমার ক্ষুদ্র জীবনের এই বিশেষ পর্বটা মানুষের মন ছুঁয়ে যাবে, একটু হলেও তাঁদের বাবা-মা, তাঁদের শৈশবের দিনগুলোয় ফিরিয়ে নিয়ে যাবে। এখন দেখছি মস্ত বড় ভুল করেছি। যাই হোক… বড় একটা শিক্ষা হল আমার।’
মীর

এর কিছু দিন আগেই গনেশ চতুর্থী উপলক্ষে নিজের ভক্তদের শুভেচ্ছা জানিয়েও কটুক্তির মুখে পড়তে হয়েছিল তাকে।নেটিজেন দের অনেকেই তাকে অনেক খারাপ খারাপ মন্তব্য করেছিলেন।কিন্তু মীর সেসব কে একদমই গুরুত্ব দেননি।এমন ধরনের লোক থাকবেই এদের কথা ভেবে নিজের সময় নষ্ট করার প্র‍য়োজন নেই এমনটাই হয়তো ধারনা করেন মীর।

আরোও পড়ুন :