মমতা-অনুব্রতর বিকৃত ছবি পোস্ট ফেসবুকে, বিপাকে সিউরির যুবক

233
- Advertisement -

বর্ন মন্ডল
দীর্ঘ নয় বছর পরে ফের অম্বিকেশ মহাপাত্রের ছায়া ফিরল বীরভূমের সিউরিতে।মা দূর্গার মুখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর মুখ ও অসুরের মুখের জায়গায় অনুব্রত মন্ডলের মুখ বসিয়ে ফেসবুকে তা আপলোড করার দায়ে বীরভূমের বর্ন মন্ডল নামে এক যুবক কে গ্রেফতার করল পুলিশ।পুলিশ সূ্ত্রে জামা গিয়েছে অভিযুক্ত যুবক সিউরি ২ নম্বর ব্লকের দমদমা গ্রাম পঞ্চায়েতের পতন্ডা গ্রামের অধিবাসী।

- Advertisement -

বীরভূৃমের দাপুটে নেতা অনুব্রত মন্ডলের গড়ে বাস করে তারই ছবি বিকৃত করার সাজা পেল ওই যুবক।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে দেবী দূর্গার রূপে এবং অনুব্রত মন্ডলকে অসুরের রূপে সাজিয়ে সেই ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন ওই যুবক।এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই সিউরি থানার পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।বর্ন মন্ডলের এই ঘটনা মনে করিয়ে দেয় দীর্ঘ নয় বছর আগে ঘটা যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অম্বিকেশ মহাপাত্রের ঘটনা কে।তিনি সে সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও মুকুল রায়ের একটি কার্টুন বানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন।কার্টুন কান্ডে অভিযুক্ত অম্বিকেশ মহাপাত্র কে আদালত নয় বছর বাদে কিছু ছাড় দিয়েছে।

জানা গিয়েছে বর্ন মন্ডল তার নিজের ফেসবুক পেজে একটি মা দূর্গার ছবি আপলোড করেন।নিজের দক্ষতায় মা দূ্র্গার মুখের জায়গায় তিনি বসিয়ে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর মুখ।আর মা অসুর বধ করছেন অসুরের মুখে মুখ বসানো অনুব্রত মন্ডলের পিঠে চেপে।এই ছবি আপলোড করে যুবক আবার ক্যাপশান ও দিয়েছিলেন ‘কেস দেবেন না প্লিজ’।এই ছবির ছাড়ার কিছুক্ষন পরেই নিজের ফেসবুকে আরও একটি ছবি পোস্ট করেন বর্ন মন্ডল।যেখানে দেখা যাচ্ছে লক্ষ্মীর ভান্ডার এর লম্বা লাইন,সেখানে লেখা ‘লক্ষ্মীর ভান্ডার পূর্ন’, আবার তার নীচেই স্কুলের ফাঁকা বেঞ্চের ছবি দিয়ে লেখা আছে ‘সরস্বতীর ভাণ্ডার শূন্য’। এই ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়তেই তৃনমূল নেতা কর্মীদের ক্ষোভ ফেটে পড়ে।

তৃনমূলের জেলা সভাপতি নুরুল ইসলাম এই ঘটনার জন্য বর্ন মন্ডলের নামে সিউরি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।এই অভিযোগের ভিত্তিতেই বর্ন কে আটক করে পুলিশ।এই ঘটনা নিয়ে ইতিমধ্যেই বিজেপি – তৃনমূল তরজা শুরু করেছে।তৃনমূলের দাবী বর্ন বিজেপির হয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে এইসব ধরনের পোস্ট করে।অপরদিকে আবার বিজেপির দাবী, বর্ন তাদের সাথে যুক্ত নয়,তৃনমূল মিথ্যা তাদের ওপর দোষারোপ চাপাচ্ছে।

আরোও পড়ুন :