এই ১০ টি কাজ ভুলেও করবেন না ফেসবুকে, আপনার অজান্তেই আসতে চলেছে বড় বিপদ

ছবি : প্রতীকী

আমাদের সারাদিনের আপডেট, বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে সারাক্ষন জুড়ে থাকার জন্য চ্যাট, লাইভ, খাওয়াদাওয়া ছাড়াও আরো কিছু খুঁটিনাটি বিষয়ে আমরা ফেসবুকে আপডেট দিয়ে থাকি। আমরা চাই আমার সাথে আমার পছন্দের মানুষগুলোও যেন জুড়ে থাকে আমার খুশির মুহূর্তগুলোতে। কিন্তু জানেন কি যে আপনার এই মনোভাবই আসলে আপনাকে ঠেলে দিতে পারে বিপদের দিকে। এবার থেকে সতর্ক হোন ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার ব্যাপারে। সাধারণত ফেসবুকে কিছু পোস্ট করার সময় আমরা সাতপাঁচ ভাবিনা। কিন্তু এবার থেকে ভাবা প্রয়োজন। বিশেষ করে নিম্নলিখিত বিষয়গুলি নিয়ে পোস্ট দেওয়ার ব্যাপারে।

- Advertisement -

১. আপনার একান্ত ব্যক্তিগত তথ্যগুলো ফেসবুকে প্রকাশ করবেন না। ব্যক্তিগত তথ্য বলতে বাড়ির ঠিকানা, নিজের টেলিফোন নম্বর, জন্ম তারিখ কিংবা এমন তথ্য যা অপরাধীদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে।

২. পাসওয়ার্ড নিয়ে মজা করবেন না। ফেসবুকে কী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করেছেন এ সংক্রান্ত সূত্র তুলে ধরবেন না। পাসওয়ার্ড এমনিতেই অতিগোপনে রাখতে হয়। এটি চুরি হলে বিপদ ঘটে যেতে পারে।

৩. আপনি এই মুহূর্তে কোথায় আছেন তা ফেসবুকে জানান দিতে নেই। কারো সঙ্গে দেখা করতে হলে এখন কোথায় আছেন তা বলার অনেক উপায় আছে। ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে তো সবাইকে বলার দরকার পড়ে না। এতে নিরাপত্তা ঝুঁকির মধ্যে পড়তে পারে।

৪. ভ্রমণে যাচ্ছেন? এর পরিকল্পনার কথা ফেসবুকে বলতে যাবেন না। এটা হোক নিজের দেশে কিংবা বিদেশে। কেউ সঙ্গে গেলে তার সঙ্গেই পরিকল্পনা করুন। ফেসবুকে অপরাধীদের আনাগোনা বিষয়ে আপনার কোনো ধারণাই নেই।

৫. অনেকেই মানুষের মনোযোগ আকর্ষণের জন্য এমন সব পোস্ট দেন যা আসলে বিরক্তিকর। সবাই বোঝেন যে আপনি দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাইছেন। এর জন্যে অনেকে অস্বস্তিকর ও আপত্তিকর পোস্টও দিয়ে থাকেন। এতে মূলত আপনার সুনাম ক্ষুণ্ন হবে।

৬. আপনার জীবনে এই মুহূর্তে কী ঘটে যাচ্ছে আর কী ঘটেছে তা নিয়ে তথ্য প্রকাশ করবেন না ফেসবুকে। যাদের জানাতে চান তাদেরকে ব্যক্তিগত উপায়ে বলুন।

৭. অস্বস্তিকর ছবি দেবেন না। বন্ধুদের সঙ্গে কোনো গোপন পার্টির আজে-বাজে ছবি ফেসবুকে দেবেন না।

৮. যে ছবিগুলো আপনি গোপনে রাখতে চান সেগুলো বোকার মতো ফেসবুকে দেবেন না। এসব ছবি একান্তই থাক।

৯. যেখানে চাকরি করছেন তা নিয়ে আপনার অনেক অভিযোগ থাকতে পারে। কিন্তু এসব নিয়ে কথা-বার্তা ফেসবুকে দেবেন না। স্যোশাল মিডিয়ার যুগে অফিস কর্মীদের ফেসবুক পর্যবেক্ষণ করে। কাজেই বিপদে পড়বেন।

১০. উদ্দেশ্য প্রণোদিত এবং উস্কানিমূলক রাজনৈতিক পোস্ট কখনো ফেসবুকে দেবেন না।

আরোও পড়ুন :